• শনিবার   ২৫ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১২ ১৪২৯

  • || ২৫ জ্বিলকদ ১৪৪৩

দৈনিক খাগড়াছড়ি

জেএসএস এর প্রতি পাহাড়ে ভ্রাতৃঘাতী সংঘাত বন্ধের আহবান 

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২২  

ছবি- দৈনিক খাগড়াছড়ি।

ছবি- দৈনিক খাগড়াছড়ি।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার পানছড়ি ও দীঘিনালায়  বিরোধী আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট- ইউপিডিএফ ও পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরকারী সাবেক গেরিলা নেতা এবং আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি-জেএসএস কর্তৃক  বিরোধী আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট- ইউপিডিএফ ও পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরকারী সাবেক গেরিলা নেতা এবং আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি-জেএসএস এর উপর সশস্ত্র হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে জেলার পানছড়ি, দীঘিনালাসহ রাাঙমাটির মাচালং ও বাঘাইহাট এলাকায়। 

দুপুরে পানছড়িতে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটি, বাঘাইহাট, মাচালং ও দীঘিনালায় এলাকাবাসীর ব্যানারে এসব বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। 

জানা যায়, আজ শনিবার (১১ জুন ২০২২ ইং) ভোরে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার পানছড়ি উপজেলার চেঙ্গী ইউনিয়নের দুর্গম হরণসিং পাড়া এলাকা পাশ্ববর্তী দীঘিনালা উপজেলার নাড়েইছড়ির দুর্গম সিরেন্দি পাড়া এলাকায় প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চুক্তি বিরোধী আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট- ইউপিডিএফ ও পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরকারী সাবেক গেরিলা নেতা এবং আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি-জেএসএস এর মধ্যে ভয়াবহ 
এক গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। 

এ ঘটনায় হতাহতের বিষয়ে পুরোপুরি কোন তথ্য নিশ্চিতভাবে না পাওয়া গেলেও কটি অসমর্থিত সূত্র বলছে, গোলাগুলির ঘটনায় অন্তত ৩-৫ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে এবং তাৎক্ষনিক মুতদেহগুলো সরিয়ে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। 

এ ঘটনার প্রতিবাদে দীঘিনালায় এলাকাবাসীর ব্যানারে জ্ঞান চাকমা ও রিটেন চাকমার নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। পানছড়িতেও  ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটির ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

একই দাবিতে রাঙামাটির সাজেক ও বাঘাইছড়ির পৃথক পৃথক স্থানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাজেকের বাঘাইহট ও মাচলং এ এবং বাঘাইছড়ি উপজেলা সদর এলাকায় পৃথকভাবে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়। 

বাঘাইহাট এলাকায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে সাধন চাকমার সভাপতিত্বে ও জীবন ময় চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় কার্বরী রনেল বিজয় চাকমা ও ইন্দ্র জয় চাকমাসহ এলাকার জনপ্রতিনিধিরা।

মাচলং এ অনুষ্ঠিত সমাবেশে জ্ঞান শান্তি চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন চিরণজীব চাকমা, অমর কার্বারী ও বিজয় কার্বারী প্রমুখ। অপরদিকে বাঘাইছড়িতে মিছিল পরববর্তী অনুষ্ঠিত সমাবেশে কৃপাধন চাকমার সঞ্চালনায় সন্তুষ চাকমাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা, আজ ভোরে পানছড়ি ও দীঘিনালায় নতুন করে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস কর্তৃক ইউপিডিএফ নেতা-কর্মীদের ওপর সশস্ত্র হামলার উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তারা বলেন, আমরা সাধারণ জনগণ আর ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত চাই না। দীর্ঘ সংঘাতে জড়িয়ে জাতি অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই বৃহত্তর জাতীয় স্বার্থকে সমুন্নত রেখে জেএসএস-কে অবশ্যই এই সংঘাত বন্ধ করতে হবে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]