• শুক্রবার   ২৭ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৯

  • || ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩

দৈনিক খাগড়াছড়ি

মাটিরাঙ্গায় ঘর পেল অর্ধশত পরিবার, নির্মাণাধীন আরো ২৩৫ টি

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০২২  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

তৃতীয় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর প্রদান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলায় নতুন ঘর পেলেন ৫০টি অসহায় পরিবার।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উপস্থিতিতে এই গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। শুভ উদ্বোধন ঘোষণার পর প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এসব গৃহের চাবি ও জমির দলিল হস্তান্তর করেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৃলা দেব।

এসময় মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৃলা দেব বলেন, ভূমিহীন ও গৃহহীনহীনদের স্থায়ী ঠিকানা করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতো মানুষকে ঘরসহ জমিদান বিশ্বে অনন্য। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার জনগনের জীবনমান উন্নয়নের জন্য সামাজিক সুরক্ষা বলয় বাড়িয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই এ দেশ এক দিন সোনার বাংলায় পরিণত হবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আলী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহম্মেদ, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাস চাকমা, বেলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রহমত উল্যাহ, মাটিরাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান হেমেন্দ্র ত্রিপুরা ও বড়নাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইলিয়াছ, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও সুবিধাভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের নকশা ও পরিকল্পনার তুলনায় এবার কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। যার ফলে ঘরগুলো অনেক সুন্দর, টেকসই ও দূর্যোগ সহনীয় হবে বলে মনে করছেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহম্মেদ। তিনি বলেন, ঈদের আগেই রঙিন ঘরগুলো হস্তান্তর করার মাধ্যমে আনন্দের নতুন মাত্রা যুক্ত হলো।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রশাসনের নিবিড় তত্ত্বাবধানে ঘর নির্মাণ ও উপকারভোগীদের নির্ধারণ করা হয়েছে। এ উদ্যোগের সাথে উপজেলার যারা সংশ্লিষ্ট তারা যার যার অবস্থান থেকে ভুমিকা রেখেছেন।

তৃতীয় পর্যায়ের প্রথম ধাপে বর্নাল ইউনিয়নে ৪ জন, গোমতি ইউনিয়নে ৫ জন, তাইন্দং ইউনিয়নে ৪ জন, তবলছড়ি ইউনিয়নে ৭ জন, বেলছড়ি ইউনিয়নে ৪টি, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়নে ৬টি, আমতলী ইউনিয়নের ৫টি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ১৫টি সহ মোট ৫০টি অসহায় পরিবারকে দুই শতক জমিসহ দুই কক্ষের সেমিপাকা ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৃলা দেব।

উল্লেখ্য, আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৩য় পর্যায়ে এই উপজেলায় আরো ২৩৫টি ঘরের নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]