• শুক্রবার   ২৭ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৯

  • || ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩

দৈনিক খাগড়াছড়ি

মানিকছড়িতে এবার বাঙালিদের ভূমিতেই ছনের ঘর তুলে আগুন দিল উপজাতিরা

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১৭ মার্চ ২০২২  

ছবি- দৈনিক খাগড়াছড়ি।

ছবি- দৈনিক খাগড়াছড়ি।

 

খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ির মাইসছড়ি ইউনিয়নে এবার বাঙালিদের ভূমিতে রাতের আধারে জোরপুর্বক বাঁশ ও খড়ের ছাউনি নিয়ে মাচাঙ ঘর তৈরি করে তাতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে কতিপয় উপজাতি। গত সোমবার (১৪ জুন) রাত আনুমানিক সাড়ে ১১ ঘটিকায় অত্র ইউনিয়নের জয়সেন পাড়ার ৫ নং ওয়ার্ডে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার পর এলাকায় সাময়িক উত্তেজনা বিরাজ করলেও আইনশৃংখলা বাহিনী ও সেনাসদস্যদের টহলের ফলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। 

ঘটনার সূত্রপাত গত ১০ মার্চ। উক্ত দিন দুপুরে বিরোধপূর্ণ জমিটি নিয়ে পাহাড়ি ও বাঙালিদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা শুরু হয়। সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানে ভূমির প্রকৃত মালিকানা দাবিদার নাজিম, লতিফ, মাসুদ ও শহিদুল এসিল্যান্ড বরাবর দরখাস্ত প্রেরণ করে। ৫ দিন যাবৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও মঙ্গলবার গভীর রাতে ইউপিডিএফ নেতৃত্বাধীন একদল সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বিবাদী পক্ষ লক্ষি চাকমা, প্রেমময় ত্রিপুরা, স্মৃতিময় চাকমা ও ধন রঞ্জন চাকমাকে ডেকে উক্ত ভূমিতে মাচাঙ ঘর নির্মাণের জন্য বাধ্য করে। অন্যথায় তাদের নিজেদের ঘরেই আগুন লাগিয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদান করে। ভীত সাধারণ উপজাতিরা রাতের আধারেই বাঁশ ও ছন দিয়ে কোন রকম ৩টি মাচাঙ সদৃশ ঘর নির্মাণ করে। ঘর নির্মাণ হওয়া মাত্রই তাতে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় সন্ত্রাসীরা। সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করতে দোষ চাপানো হয় জমির প্রকৃত মালিকদের উপরই। এই ঘটনায় পুরো এলাকা জুড়ে উত্তেজনা বিরাজ করলে সেনাবাহিনী ও পুলিশ প্রশাসন গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এ ঘটনা নিয়ে গত ২দিন ধরে পাহাড়কে অস্থিতিশীল করার প্রয়াস নিয়ে বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে ৭-৮জন নিয়ে সভা-সমাবেশ ও মিছিল করছে ইউপিডিএফের বিভিন্ন সংগঠনের কতিপয় নেতা-কর্মীরা। 

স্থানীয় একটি চায়ের দোকানে বসা এক উপজাতি যুবক ও এক বাঙালি যুবক জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামে উপজাতি সন্ত্রাসীদের দ্বারা কোন কিছু সংগঠিত হলেই তার দায়ভার বাঙালিদের উপর চাপিয়ে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে উঠে পড়ে লাগে। তাদের মূল লক্ষ্য পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করে উপজাতি-বাঙালি সম্প্রীতি ধ্বংস করা এবং পার্বত্য চট্টগ্রামকে বিচ্ছিন্ন করে কথিত জুমল্যান্ড প্রতিষ্ঠা করা।

মূলত ১৫ মার্চ মঙ্গলবার দীঘিনালায় ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের এক সদস্যের সেনা অভিযানে ধৃত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার ঘটনায় পাহাড়ের পরিস্থিতি অশান্ত করতেই সন্ত্রাসীদের এই অপপ্রচার বলে মনে করছেন পাহাড়ের সচেতন মহল।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]