• শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৯

  • || ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক খাগড়াছড়ি

আমি নাতি-নাতনিদের জন্য রান্নাও করি: শেখ হাসিনা

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ৪ অক্টোবর ২০২২  

বহু মানুষের ভিড়ে বাবার কাঁধে চড়ে উঁকি দিচ্ছিল ছোট্ট ৬ বছরের ছোট শিশু জয়া। রিটজ কার্লটনের বলরুমে কালো কোট পরা অসংখ্য মানুষের ভিড়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে এসেছে সে। ‘আমি চেয়েছিলাম, সে এক নজর প্রধানমন্ত্রীকে দেখুক।’-কথাটি বলছিলেন জয়ার বাবা আব্দুল্লাহ নিয়ামি। উত্তর ভার্জিনিয়ায় গেল সপ্তাহে এই বিরল দৃশ্য দেখার সুযোগ পায় আমেরিকা। যেখানে একজন নারী সরকার প্রধানকে দেখতে ভিড় জমান অনেকেই, যা পেতে এখনও অপেক্ষমাণ অধিকাংশ মার্কিন নাগরিক।

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগদানের পর নর্দান ভার্জিনিয়ায় থাকার সময় এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শক্তি-সাহসের প্রতিচ্ছবি তিনি। রাশিয়ার জনসংখ্যা থেকে বেশি একটি দেশকে দীর্ঘদিন ধরে নেতৃত্ব দেওয়া এবং ২০ বারের বেশি হত্যাচেষ্টার শিকার হওয়া বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুধু একজন রাষ্ট্রপ্রধানই নন, এর পাশাপাশি একজন দাদীও। চলতি বছর ৭৬তম জন্মদিন পালন করছেন তিনি। লন্ডন শহরের পাশেই এক শহরে ছেলে ও নাতি-নাতনিদের সঙ্গে জন্মদিন পালন করবেন শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রী যেমন, তেমনই একজন দাদিও। আমি আমার নাতি-নাতনিদের জন্য রান্না করি। চিকেন বিরিয়ানি বানাই। আর আমার ছেলের বাসায় এ জন্য আলাদা রান্নাঘরও আছে।

শেখ হাসিনার সফরকালে তার কাছ থেকেও এসব গল্প শুনতে পাই। একটি সাক্ষাৎকারে তিনি একথাগুলো বলেন।

একটি চমৎকার সুন্দর কক্ষে ওই সাক্ষাৎকারের সময় সঙ্গে একজন অনুবাদক ও স্টাফ প্রধান ছিলেন। এ ছাড়া দেয়ালে ছিল তার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি বড় ছবি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পরিবারের ১৭জন সদস্যসহ তাকে হত্যা করা হয়েছিল। তবে পিতার রাজনৈতিক আদর্শকে ধারণ করে শেখ হাসিনা তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

সম্প্রতি জাতিসংঘ অধিবেশনে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীর জন্য সহযোগিতা চেয়েছেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘শরণার্থী জীবন ভালো নয়। তারা নিজের দেশে ফিরতে চায়।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেরও অভিবাসীদের নিয়ে সংকট চলছে এমন প্রসঙ্গ তুললে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে আমেরিকার অভিবাসীদের তুলনা করা চলে না। তাদের প্রচুর জমি আছে। ফাঁকা জায়গা আছে। তাদের তো অভিবাসীদের নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। বাংলাদেশ বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম জনগোষ্ঠীর দেশ। কিন্তু আমাদের জমি কম। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের একটা রাজ্যের সমান।’

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক নানা তদন্তের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। এছাড়া তিনি নিজের দেশে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে কঠোরতার জন্যও পরিচিত। ২০১৫ সালে সন্ত্রাসবাদ দমনে এমন কঠোর অবস্থানের কারণে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছ থেকেও শুভেচ্ছা পেয়েছিলেন।

সম্প্রতি ‘হুম! ছেলে’ শিরোনামে একটি ‘মিম পোস্ট’ ছড়িয়ে পড়ে। এটিকে ইতিবাচক হিসেবেই নিয়েছেন অনেকে।

শেখ হাসিনা এক বক্তব্যে বলেছিলেন, 'নারীরা পুরুষের চেয়ে ভালো।' এ মন্তব্যের পর মুচকি হেসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। পরে এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, বাংলাদেশের দারিদ্রতা, শিক্ষার সংগ্রামে নারীরা যেসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেন সেটি সত্যিই বড় একটি বিষয়। তাদের স্থবিরতা দেশের অগ্রগতিকে থামিয়ে দেবে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]