• মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৯

  • || ২৯ সফর ১৪৪৪

দৈনিক খাগড়াছড়ি

৭৫০ শয্যার বিশেষায়িত হাসপাতালের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ৭৫০ শয্যার উন্নত বিশেষায়িত হাসপাতাল উদ্বোধন করেছেন। আজ বুধবার প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি বিএসএমএমইউ’তে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

 কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নতুন এ হাসপাতালে বিশেষায়িত সেবার পৃথক পাঁচটি কেন্দ্র থাকবে—জরুরি চিকিৎসাকেন্দ্র, হৃদ্‌রোগ ও স্নায়ুরোগ সেবাকেন্দ্র, হেপাটোবিলিয়ারি ও যকৃৎ প্রতিস্থাপনকেন্দ্র, কিডনি রোগকেন্দ্র এবং মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্যকেন্দ্র। এ ছাড়া থাকবে ১০০ শয্যার আইসিইউ শয্যা ও জরুরি চিকিৎসার ১০০ শয্যা।

২০১৬ সালের ২ ফেব্রুয়ারি সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল প্রকল্পের অনুমোদন দেয় একনেক। ২০১৮ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার এ প্রকল্পে দশমিক শূন্য ১ শতাংশ সুদে এক হাজার কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার। ৩৩০ কোটি টাকা দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বাকি টাকা আসছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব তহবিল থেকে।

গতকাল মঙ্গলবার বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য মো. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা শুধু উন্নত চিকিৎসার আয়োজন করছি, তা নয়। আমরা উন্নত চিকিৎসার জন্য জনবল তৈরিরও উদ্যোগ নিয়েছি। একটি লম্বা সময় ধরে কোরিয়ার ৫৬ জন বিশেষজ্ঞ সার্জন এই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার পাশাপাশি হাসপাতালের অন্য চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণও দেবেন।’

ফার্মেসি ছাড়াও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার দোকান ও ব্যাংকিং সুবিধা হাসপাতালের মধ্যে থাকছে। চিকিৎসকদের জন্য পৃথক ক্যাফেটেরিয়া ছাড়াও থাকবে তিনটি ক্যাফেটেরিয়া। থাকবে লন্ড্রি হাউস এবং প্রায় ২৫০টি গাড়ি রাখার পার্কিং সুবিধা। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রোগী ভর্তি, রোগীর তথ্য সংরক্ষণ, চিকিৎসা এবং সার্বিকভাবে হাসপাতালের নিরাপত্তায় তথ্য–প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে।

বিএসএমএমইউ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৮ সালে। বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে সাতটি অনুষদে শিক্ষার্থীদের স্নাতকোত্তর ডিগ্রি দেওয়া হয়। আছে ৪৬টি বিভাগ। প্রতিদিন হাসপাতালের বহির্বিভাগে সাত হাজারের বেশি মানুষ চিকিৎসা নেয়। আছে প্রায় দুই হাজার শয্যার একটি হাসপাতাল। এর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে আরও ৭৫০ শয্যা।

বিএসএমএমইউতে মানুষ উন্নত চিকিৎসা পায় ঠিকই, তবে সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতার অভিযোগ আছে। এ ব্যাপারে উপাচার্য মো. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘নতুন ও পুরোনো দুটি হাসপাতাল চালানোর মতো জনবল আমাদের আছে। সমস্যা কিছু আছে, আস্তে আস্তে তা দূর হবে। আমরা এমন একটি ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চাইছি, যেন উন্নত চিকিৎসার জন্য মানুষ বিদেশমুখী না হয়।’

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]