• রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৮

  • || ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

দৈনিক খাগড়াছড়ি

কবাখালী ইউপিতে সদ্য সাবেক বিএনপি নেতার নাম প্রস্তাবে অসন্তোষ

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০২১  

ছবি- নিজস্ব প্রতিবেদক।

ছবি- নিজস্ব প্রতিবেদক।

 

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় সদ্য সাবেক বিএনপি নেতা আব্দুল বারেক’র নাম করেছে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলা আওয়ামীলীগ। একই সাথে বাকী দুটি মেরুং ও সদর ইউনিয়নেও নব্য আওয়ামীলীগার দুই ব্যক্তি’র নাম প্রস্তাব করার পাঁয়তারা চুড়ান্ত করার অভিযোগ উঠেছে। এই অপতৎপরতায় ক্ষোভ জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতারা।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: মাহবুব আলম, ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম- সা: সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তাবিত কমিটির যুগ্ন সম্পাদক মো: রওশন আলী ভূইয়া এ ব্যাপারে লিখিতভাবে জেলা আওয়ামীলীগের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 

তাঁরা জেলা কমিটির কাছে করেন, কবাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন দেয়াকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে আকস্মিকভাবে গত ১৫ অক্টোবর বৈঠক ডাকা হয়। সেখানে ইউনিয়ন কমিটির ৬৮ ব্যক্তিকে দিয়ে ভোট নেয়া হয়।

অভিযোগ রয়েছে, ২ বছর পূর্বে ইউনিয়ন কমিটি গঠন করা হলেও তা অনুমোদিত নয়। তাছাড়া ওই প্রস্তাবিত কমিটির বেশ কয়েকজনই বিএনপি ও সহযোগী সংগঠন থেকে সদ্য আওয়ামীলীগে যোগদানকারী। যারা ভোট দিয়ে তাদের সাবেক বিএনপি নেতা আব্দুল বারেককে সম্ভাব্য ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন। 

ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, বিএনপি থেকে টাকার বিনিময়ে অনুপ্রবেশকারী আব্দুল বারেক ‘বিএনপি-জামাত’ শাসনামলে আওয়ামীলীগের অসংখ্য নেতাকর্মীকে নিপীড়ন করেছেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহবুব আলম বলেন, ‘১৮ বছর ধরে কেবল উপজেলা আওয়ামীলীগেই কাজ করছি। অথচ দলে অনুপ্রবেশ করেই প্রার্থী হবেন এটা মেনে নেয়া যায়না।’ আওয়ামীলীগ নেতা মো: রওশন আলী ভূইয়া জানান, ‘শুনেছি ইউনিয়ন কমিটির বৈঠকের কিছুক্ষন আগেই সেই কমিটিকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। যেখানে উপজেলা কমিটিকে এখনো অনুমোদন দেয়া হয়নি; সেই কমিটি কিভাবে ইউনিয়ন কমিটির অনুমোদন দিলো?’

খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সা: সম্পাদক ও দীঘিনালার বাসিন্দা কে এম ইসমাইল হোসেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে একমত পোষণ করে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী জানিয়েছেন, এ ধরণের কোন লিখিত অভিযোগ তিনি পাননি। তবে, দলে সদ্য যোগদানকারী বা অনুপ্রবেশকারী কাউকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয়ার চিন্তা নেই। দিলেও তাদের অতীত সম্পর্কে আলাদাভাবে নোট দেয়া হবে।’
 

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]