• সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১১ ১৪২৭

  • || ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

দৈনিক খাগড়াছড়ি
২৩২

টাইগারদের ক্রাইস্টচার্চ ঘটনার এক বছর আজ

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০২০  

ছবি- সংগৃহীত।

ছবি- সংগৃহীত।

 

ঠিক এক বছর আগের এই দিনে টেস্ট সিরিজ খেলতে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে অবস্থান করছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ১৫ মার্চের সেই দিনটি ছিল শুক্রবার। অনুশীলন শেষে মাঠের কাছেই ডিন এভিনিউতে অবস্থিত আল নূর মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়েছিলেন টাইগার ক্রিকেটাররা। সে মসজিদেই জুমার নামাজের সময় নিরীহ মানুষদের গুলি করে হত্যা করে এক সন্ত্রাসী। ভাগ্যক্রমে সেদিন প্রাণে রক্ষা পেয়েছিলেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহরা।

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি পার্কে শুক্রবার সকালে অনুশীলন করে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। সেখানেই অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড দলের মধ্যকার তৃতীয় টেস্ট ম্যাচ। অনুশীলন শেষে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলন আসেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সেখান থেকেই সবাই মিলে মসজিদে যাওয়ার কথা ছিল।

সংবাদকর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের কারণে সংবাদ সম্মেলন শেষ হতে কিছুটা দেরি হয়ে যায়। বলা যায় মূলত সংবাদ সম্মেলনের সেই দেরিই বাঁচিয়ে দিয়েছিল ক্রিকেটারদের। 

বাংলাদেশ দলের বাস মসজিদের সামনে আসা মাত্রই সেখান থেকে রক্তাক্ত শরীর নিয়ে এক নারী বেরিয়ে পড়ে যান। তখনো ক্রিকেটাররা বুঝতে পারেননি, কী ভয়াবহ ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। সে সময় গাড়ি নিয়ে আসা এক নারী চিৎকার করে তামিমদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। বলেন, ‘তোমরা ভেতরে যেয়ো না। ওখানে গোলাগুলি চলছে।’

এসময় কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে যান সবাই। তখন দলের সঙ্গে ছিল না কোনো নিরাপত্তাকর্মী, এমনকি কোনো লিয়াজোঁ অফিসারও। এসময় আর কোনো ঝুঁকি না নিয়ে দ্রুত ফেরার সিদ্ধান্ত নেন ক্রিকেটাররা। পায়ে হেঁটে পার্কের মধ্য দিয়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরেন তারা। ক্রাইস্টচার্চের সেই সন্ত্রাসী হামলায় ৪৯ জন মারা যান। মৃত্যুর হাত থেকে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা। 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই ঘটনা নিয়ে মনের ভাব প্রকাশ করেছিলেন টাইগার ক্রিকেটাররা। সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম লিখেছিলেন, ‘ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলার সময় আল্লাহ আজ আমাদের রক্ষা করেছেন। আমরা অত্যন্ত ভাগ্যবান।’ 

বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের ওপেনার তামিম ইকবাল ফেসবুকে লিখেন, ‘পুরো দল বন্দুকধারীদের হামলা থেকে রক্ষা পেয়েছে!!! ভয়াবহ অভিজ্ঞতা হলো। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

ঘটনার পর ক্রিকেটবিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোর ক্রীড়া প্রতিবেদক মোহাম্মদ ইসাম টুইটারে লিখেছিলেন, ‘তারা (ক্রিকেট দল) হ্যাগলি পার্কের কাছে একটি মসজিদে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনা থেকে বাঁচতে পেরেছেন।’ 

এরপর দুই দলের সম্মতিতে ১৬ই মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া সিরিজের তৃতীয় টেস্টটি বাতিল করে সে দিনই দেশে ফেরেন টাইগাররা। আজ পূর্ণ হলো সেই সন্ত্রাসী হামলার এক বছর। 

খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর