• সোমবার   ১৭ মে ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৮

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪২

দৈনিক খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়িতে এখন যেভাবে মানুষের পাশে সেনাবাহিনী

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ১৩ এপ্রিল ২০২১  

চলছে করোনার প্রকোপ। সারাদেশের মত খাগড়াছড়িতেও ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। একজন দু জন করে মারা যাচ্ছে প্রতিদিন। তবে জীবনের ঝুকি নিয়ে যারা এখনো পাশে দাঁড়াচ্ছে এখানে সেনাবাহিনী তাদের অন্যতম। 
সরকারের কোন ফোর্স হিসেবে নয়, সেনাবাহিনীর সদস্যরা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে বন্ধু হয়ে। তারা ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছে। খাবার দিচ্ছে। মাস্ক পড়তে বাধ্য করছেন। আর এভাবেই দিনরাত নিরলস কাজ করে চলেছেন সেনা সদস্যরা।
স্থানীয় সূত্র জানায়, করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় মানবিক সচেতনতার অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ি জনস্বার্থে হাত ধৌতকরণ পয়েন্ট স্থাপন করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। জনস্বার্থে হাত ধৌতকরণ পয়েন্টটির শুভ উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি সদর জোনের ভারপ্রাপ্ত জোন উপ-অধিনায়ক মেজর মোঃ সুলতান মাহমুদ শেখ।
এ সময় ভারপ্রাপ্ত জোন উপ-অধিনায়ক অতি জরুরি প্রয়োজন না হলে কাউকে ঘর থেকে বাহিরে না আসার জন্য এবং কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সরকারি সকল বিধিনিষেধ মেনে চলার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করেন। এছাড়াও সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং ঘরের বাহিরে বের হলে মাক্স ব্যবহারের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন।
এ বিষয়ে সদর জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল মোঃ জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘খাগড়াছড়ি সদর জোন যেকোনো দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে আর্ত-মানবতার সেবায় বেসামরিক প্রশাসনকে তাৎক্ষণিক সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে ছিল এবং আগামীতেও পাশে থাকবে।
তিনি আরও বলেন, ‘বৈশ্বিক করোনা মহামারীর এই দুর্যোগ মুহূর্তে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী জনগণকে সচেতন এবং সহায়তা প্রদানে সর্বদা সচেষ্ট। এরই ধারাবাহিকতায় খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এবং খাগড়াছড়ি সদর জোনের প্রতিটি সদস্য সদা তৎপর রয়েছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

খাগড়াছড়ি সদরের লোকজন জানান, করোনা রোধে জেলায় জীবাণুনাশক ছিটানোর পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে তৎপর সশস্ত্র বাহিনী। বৃত্ত এঁকে নির্দিষ্ট দূরত্বে থেকে কেনাকাটা ও নিত্যপণ্যের বাজার সহনীয় রাখতে টহল দিচ্ছেন তারা। হোম কোয়ারেন্টিন মানতেও বাধ্য করা হচ্ছে। 
বিশ্বের ন্যায় উপজেলাগুলোতে সর্বত্র করোনাভাইরাস আতঙ্ক। দেশবাসীকে কোভিড নাইনটিন সম্পর্কে সচেতন করতে কাজ করছেন সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা। ইতিমধ্যে আশপাশের রাস্তায় ব্লিচিং পাউডার মেশানো পানি ছিটিয়ে জীবাণুমুক্ত করেন সদস্যরা। এছাড়া, স্থানীয় নিম্ন আয়ের মানুষকে খাদ্য সহযোগিতাও দেন তারা। এদিকে দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার পাশাপাশি ক্রেতা-বিক্রেতার সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে নগরীর বিভিন্ন বাজারে যৌথ অভিযান চালায় সেনাবাহিনী ও জেলা প্রশাসন। এসময় প্রতিটি দোকানের সামনে এক মিটার দূরত্বের লাল বৃত্ত এঁকে দেয়া হয়। পরে বিভিন্ন এলাকায় হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে টহল দেন সেনা সদস্যরা।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখে পাঠাতে পারেন আমাদের। এছাড়া যেকোনো সংবাদ বা অভিযোগ লিখে পাঠান এই ইমেইলেঃ [email protected]