• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ১৯ রজব ১৪৪২

দৈনিক খাগড়াছড়ি

অপপ্রচার চালানো ছাড়া বিএনপির কোনো কাজ নেই!

দৈনিক খাগড়াছড়ি

প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি- সংগৃহিত।

ছবি- সংগৃহিত।

 

করোনা মোকাবিলায় সারাবিশ্ব যখন দলমত নির্বিশেষে কাজ করেছে তখন বাংলাদেশের বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপির চিত্র উল্টো। করোনা সংকটে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো ছাড়া জনগণকে কী কোনো সহযোগিতা করতে পেরেছে বিএনপি- এই প্রশ্ন এখন জনগণের।

এদিকে রাজনীতিবিদরা বলেন, গঠনতন্ত্র সংশোধন করে দলটি সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে দলীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে। যে দল দুর্নীতিকে নীতি হিসেবে গ্রহণ করেছে, সে দল জনগণের কল্যাণে কী কাজ করবে, তার কিছুটা হলে দেশের মানুষ ধারণা করতে পেরেছে। যে দল লুটপাট করতে ব্যস্ত থাকে তারা মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারবে না- এটাই হলো বাস্তবতা।

তারা আরো বলেন, কারণ বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত, আর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও সাজাপ্রাপ্ত আসামি। তিনি দেশেও থাকেন না, পলাতক রয়েছেন। ফেরারি আসামি হয়ে বিদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের মাধ্যমে দল কতটুকু ভালোভাবে চলবে, জনগণের কল্যাণে কতটুকু কাজ করবে- সেই বিষয়ে সন্দেহ থাকতেই পারে- এটাই স্বাভাবিক। এছাড়া যারা নেতৃত্ব পাওয়ার মত তারা প্রত্যেকেই দুর্নীতিগ্রস্ত। তাদের ছত্রছায়ায় দলকে দুর্নীতির অভয়ারণ্যে পরিণত করা হয়েছে।

বেগম খালেদা জিয়া ১০ বছরের শাসনামলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠা করেন। বিএনপি সুশাসনের পরিবর্তে দেশকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের অভয়ারণ্যে পরিণত করে। তাদের আমলে এদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। বিরোধী রাজনৈতিক দল হিসেবেও অনেক বছর ধরে বিএনপি জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের ভিত্তিতে তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে এবং এখনো তা অব্যাহত রয়েছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ বলেন, দেশবাসী আশা করে বিএনপি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ পরিহার করে সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করবে। তবে তারা সেটা না করে করোনা সংকটের মধ্যেও সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপি দুর্নীতির লালন ও বিকাশ ছাড়া আর কী করেছে? জনগণের কাছে আজ সবই দিবালোকের মতো পরিষ্কার। কারণ তারা নিজেদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭-ধারা বাতিল করে দুর্নীতিবাজদের নেতৃত্বে এনেছে, আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে। যারা ক্ষমতায় থাকতে দুর্নীতির বিচার করেনি- তাদের মুখে দুর্নীতি বিরোধী কথা মানায় না।